মঙ্গোলিয়াকে উড়িয়ে দিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

0
117

মঙ্গোলিয়াকে ৩-০ গোলে হারিয়ে বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আসরের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মঙ্গলবার মঙ্গোলিয়ার মুখোমুখি হয় লাল-সবুজের মেয়েরা। এতে নিশ্চিত হয় বাঘিনীদের ফাইনালের টিকিট। আগামী ৪ মে ফাইনালে স্বাগতিকদের প্রতিপক্ষ শক্তিশালী লাওস।

নিজেদের মাঠ, চেনা দর্শকদের সামনে যথারীতি ছড়ি ঘুরিয়েছে বাংলাদেশই। খেলার শুরুর মূহুর্ত থেকেই গোলের সুযোগ তৈরি করেছে স্বাগতিকরা। দুই উইং দিয়ে মার্জিয়া ও সানজিদার আক্রমণ ছিল চোখে পড়ার মতো।

প্রথম ৪৫ মিনিট অনেকগুলো সুযোগ হাতছাড়া হয়েছে বাংলাদেশি মেয়েদের পায়ে। নিজেদের রক্ষণকে দেয়াল বানিয়ে রেখেছিল মঙ্গোলিয়ান মেয়েরা। বিশেষ করে তাদের গোলরক্ষক। তার কাছেই বারবার ব্যর্থ লাল-সবুজ ফরোয়ার্ডরা।

চোটের কারণে সেমিতে ছিটকে যাওয়া দুই ফরোয়ার্ড স্বপ্না-কৃষ্ণার পরিবর্তে মাঠে নামা সাজেদা একাধিক সুযোগ হারিয়েছেন। ১৬ মিনিটে সানজিদার দ্রুতগতির এক শট ফিরেছে বারে লেগে।

তবে প্রতিপক্ষ হিসেবে মঙ্গোলিয়ান মেয়েরাও খেলেছে নেতিবাচক ফুটবল। নিজেদের রক্ষণে বেশিরভাগ সময়ে ১১ খেলোয়াড়কেই খেলিয়েছে দলটি। গোলকিকের সময়ও অপচয় করেছে বেশ সময়!

অবশেষে প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে এসে বাংলাদেশের খেলায় প্রাণ ফিরিয়ে দেন মনিকা চাকমা। মাঝমাঠ থেকে মঙ্গোলিয়ান রক্ষণে প্রবেশের চেষ্টা ছিল, সুযোগ বুঝে ডান পাশ থেকে মনিকার দিকে ভলি করেন সাজেদা। প্রথমে সেই বল হেডে রিসিভ করেন মনিকা, পরে ডি-বাক্সের বাইরে থেকে চালান বাঁ-পায়ে সপাটে শট। রংধনুর মতো খানিকটা বেঁকে গিয়ে মঙ্গোলিয়ান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল জড়িয়ে যায় জালে!

ম্যাচের ৫৭ মিনিটে আরও একটি দূরপাল্লার শটে দ্বিতীয় গোলটি প্রায় পেয়েই যাচ্ছিল বাংলাদেশ। ৩০ গজ দূর থেকে নেয়া মারিয়া মান্ডার শট হাত ছুঁয়ে ফিরিয়ে দেন মঙ্গোলিয়ান গোলরক্ষক।

প্রথম গোল করেছেন, ৬৯ মিনিটে দ্বিতীয় গোলের উৎসও হয়েছেন মনিকা চাকমা। তার তড়িৎ এক রক্ষণচেরা পাসে প্রতিপক্ষ গোলরক্ষককে বোকা বানান মার্জিয়া।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সাজেদার বদলি হয়ে মাঠে নেমে বাংলাদেশের খেলার গতি বাড়ান তহুরা খাতুন। দুরন্ত গতিতে একাধিকবার মঙ্গোলিয়ান রক্ষণে ঢুকে ভীতি ছড়িয়েছেন এ ফরোয়ার্ড। ফল, ৮৪ মিনিটে তুলে নিয়েছেন গোলও। ডি-বক্সের বাইরে থেকে তার নেয়া শট ড্রপ করে ঠাই নেয় জালে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here